বরফ গলা নদী pdf (ডাউনলোড) জহির রায়হান – Borof Gola Nodi by Zahir Raihan pdf

হাজার বছর ধরে উপন্যাস পড়ার পর এই প্রথম জহির রায়হানের এই উপন্যাস টা পড়ে সত্যি খারাপ লাগলো। চরম বাস্তব একটা উপন্যাস। একদমে কয়েক ঘন্টার ভেতরে পুরো উপন্যাস টা পড়ে ফেললাম। একটুও বোরিং ফিল হোল না। আমরা যারা মধ্যবিত্ত তাদের জন্য একটা চরম বাস্তব উপন্যাস। ‘মরিয়ম’ মেয়েটার জন্য খারাপ লাগলো। সারাটা জীবন কষ্ট করেও কিছুই পেলো না সে। উপন্যাস টা পরে মনে হোল সত্যি বাস্তব কারো জীবনের প্রতিচ্ছবি। পুরো ঘটনা জানতে উপন্যাস টা পড়ুন। আশা করি আপনাদের টাকা বিফলে যাবে না।

বইয়ের নাম -বরফ গলা নদী (Baraf Gola Nadi) ।
লিখেছেন – জহির রায়হান (Zahir Raihan)।
ফাইল ফরম্যাট – PDF।

বরফ গলা নদী উপন্যাস সারাংশ:

“বরফ গলা নদী” মূলত একটি সামাজিক উপন্যাস। অর্থনৈতিক দোলাচলের মধ্যে চলতে থাকা এক নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের দিনাতিপাত এবং একটি দুঃঘটনার ফলস্বরূপ অভ্যস্ত জীবনস্রোতে আমুল পরিবর্তন গল্পটির মূলভিত্তি। বেকারত্বের জ্বালা এবং চাকুরেদের ক্ষেত্রে যোগ্য চাকরির অভাব ফুটিয়ে তোলা হয়েছে গল্পের মাহমুদ চরিত্রের মধ্য দিয়ে। পারিবারিক খুনসুটি, অপরিণত প্রেম, মনমালিন্য, ছোট ছোট চাহিদার সমাবেশ, ধনী বিদ্বেষ, সামাজিক মর্যাদাক্ষয়ের আশঙ্কা, আপনজন বিয়োগের মতো ঘটনার বিন্যাস ঘটেছে উচ্চতর লেখনীশৈলীর মধ্য দিয়ে।

বরফ গলা নদী উক্তি

ছুরি দিয়ে কেটে কেটে জীবনটাকে বিশ্লেষণ করার মতো প্রবৃত্তি না হলেও জীবনের ক্ষনস্থায়ী মুহূর্ত গুলো,টুকরো টুকরো ঘটনাগুলো স্মৃতি হয়ে দেখা দেয় মনে।সেখানে আনন্দ আছে,বিষাদ আছে।ব্যর্থতা আছে, সফলতা আছে।হাসি আছে, অশ্রুও আছে।

হাজার বছর ধরে উপন্যাসের শেষ লাইন

এই উপন্যাসের শেষ লাইন ‘- “রাত বাড়ছে; হাজার বছরের সেই পুরোনো রাত।।”

Borof Gola Nodi by Zahir Raihan pdf

আমার পড়া জীবনে অন্যতম সেরা একটি উপন্যাস।
মধ্যবিত্ত পরিবারের চলনধর্ম,জীবনধারা,প্রেম সকলকিছুর এক সমন্বিত প্রয়াস।একজন মানুষের জীবনে দুইবার প্রেম আসতে পারে কিন্তু সেটাকে আমরা সহজবোধ্য ভাবে মেনে নিতে পারিনা। দোষারোপ আর সন্দেহের অনলে আমরা তা বিলীন করে দিই। কিন্তু একটা সময় পর তা ঠিকই বুঝা যায়।

জীবন কখনো থেমে থাকেনা, তাকে চালিয়ে নিতে হয়। সেটাও পেলাম। হাসি, কান্না, অভিমান সকলকিছু নিয়ে এক অপরুপ আয়োজন হলো বরফ গলা নদী।

or (ডাউনলোড)

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *